মাছের বেঁচে থাকার জন্য দরকার হলোঃ
১। পানি। যার pH থাকতে হবে ৬.৮ থেকে ৭.৫ এর মধ্যে।
২। পানিতে পর্যাপ্ত অক্সিজেন। যাকে ডিজল্ভ অক্সিজেন বলে। পানিতে DO (Dissolved Oxygen) ৫ মিলিগ্রাম/লিটার এর বেশী থাকা উচিত।
৩। খাদ্য। পর্যাপ্ত খাদ্য প্রয়োজন বেঁচে থাকার জন্য।
উপরোক্ত তিনটি প্যারামিটার নিয়ন্ত্রণে থাকলে মাছ বেঁচে থাকবে। তাতে আপনি পুকুরে মাছ রাখুন বা ট্যাংকে অথবা বিলে।

এবার আসুন মাছের বৃদ্ধির জন্য কোন প্যারামিটারগুলো নিয়ন্ত্রণ করতে হবে।
১। অ্যামোনিয়াঃ অ্যামোনিয়া (NH3) গ্যাস হলো মাছ চাষীদের প্রধান চিন্তার কারণ। এই গ্যাসটি সাধারণত উচ্ছিষ্ট বা অবশিষ্ট খাদ্য পচে গিয়ে বা মাছের মল থেকে উৎপন্ন হয়ে থাকে। এই অ্যামোনিয়াকে যেকোন উপায়ে তাড়াতেই হবে। এর সহনীয় মাত্রা ১ মিলিগ্রাম/লিটার। এর বেশী থাকলে মাছের বৃদ্ধি বাধাগ্রস্ত হবে। ফলে প্রজেক্ট লাভজনক হবে না।
২। নাইট্রাইটঃ অ্যামোনিয়া গ্যাস বিক্রিয়া করে নাইট্রাইটে পরিনত হয়। এই নাইট্রাইট মাছের জন্য ক্ষতিকর। যেকোন উপায়েই হোক না কেন, নাইট্রাইট পানি থেকে সরাতেই হবে। এর সহজ উপায় হলো নাইট্রাইটকে নাইট্রেটে পরিনত করা।
৩। নাইট্রেটঃ সাধারণভাবে এটি ক্ষতিকর নয়। বরং নাইট্রেট ফাইটোপ্লাংকটনের খাদ্য হিসেবে ব্যবহৃত হয়। কিন্তু তা সত্তেও এর পরিমাণ ৪০০ মিলিগ্রাম/লিটার এর বেশী হওয়া কাম্য নয়।
উপরোক্ত মোট পাঁচতি প্যারামিটার নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হলে মাছ চাষ লাভজনক হবে বলে আশা করা যায়। ইনশা আল্লাহ।

 

Boost Post